মতামত

১. দশম সংসদ নির্বাচন সংক্রান্ত মামলা:
দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১৫৩ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। এরপর সংসদীয় আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় একক প্রার্থীকে নির্বাচিত করার গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের ১৯ ধারা কেন সংবিধানপরিপন্থী ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ একটি রুল জারি করেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকার-এর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৩ জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার আবদুস সালাম-এর করা এক রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে উক্ত রুল জারি করেন। আদালত অধিকতর শুনানির জন্য অ্যামিকাস কিউরি হিসেবে সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক-এর সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার-সহ কয়েকজনের মতামত নেন।

আদালত যুক্তি-তর্ক উপস্থাপন ও মতামত গ্রহণ শেষে ১৯ জুন ২০১৪ আদালত উক্ত রিটটি খারিজ করে দেন। রায়ে আদালত বলেন, সংবিধানের সঙ্গে আরপিও’র সংশ্লিষ্ট ধারাটি সাংঘর্ষিক নয়। সংবিধানের সঙ্গে কোনো আইন সরাসরি সাংঘর্ষিক হলে, আদালত তা বাতিল করতে পারেন। আদালতে বলেন, বর্তমান আইনি কাঠামোতে ১৫৩ জনের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাংসদ নির্বাচিত হওয়া নিয়ে প্রশ্ন তোলার অবকাশ নেই।

প্রসঙ্গত, রিটের পূর্ণাঙ্গ রায়ে আদালত ড. বদিউল আলম মজুমদার-এর সুলিখিত বক্তব্যের ভূয়সী প্রশংসা করেন। 

আদালতে ড. বদিউল আলম মজুমদার-এর সাবমিশন পড়তে এখানে এবং কোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় পড়তে এখানে ক্লিক করুন।
----------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
২. অনুসন্ধান কমিটির সামনে বক্তব্য:
নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের লক্ষ্যে গঠিত অনুসন্ধান কমিটি নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন বিষয়ে মতবিনিময় করার লক্ষ্যে ড. বদিউল আলম মজুমদার-সহ বেশ কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে আমন্ত্রণ জানায়। আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে ড. বদিউল আলম মজুমদার কমিটির সামনে একটি লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন। উক্ত বক্তব্যটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন...

No comments:

Post a Comment